Home / বাংলা হেল্‌থ / প্রধানমন্ত্রীকে এসএমএস পাঠিয়ে ঘর পেলেন প্রতিবন্ধী কলেজছাত্র

প্রধানমন্ত্রীকে এসএমএস পাঠিয়ে ঘর পেলেন প্রতিবন্ধী কলেজছাত্র

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন নম্বরে এসএমএস (ক্ষুদে বার্তা) পাঠিয়ে জমিসহ পাকা ঘর পেলেন মাগুরা সদর উপজেলার রামনগরের প্রতিবন্ধী কলেজছাত্র বাবু মিয়া।

শনিবার (৪ সেপ্টম্বর) দুপুরে মাগুরা হাজরাপুর ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় উপস্থিত থেকে বাবুর কাছে বাড়ি ও জমির দলিল বুঝে দেওয়া হয়।

মাগুরা জেলা প্রশাসক (ডিসি) ড. আশরাফুল আলম তার হাতে ঘর ও জমির দলিল হস্তান্তর করেন।
রামনগরের হাজরাপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সামনে ২০০ সরকারি খাস জমিতে সেমি পাকা দু’কক্ষের টিনশেডের ঘর নির্মিত হয়েছে।

কলেজছাত্র বাবু বলেন, বাবা মারা যাওয়ার পর মাকে নিয়ে নানা বাড়িতে থেকেছি। আমার কোনো জায়গা-জমি ছিল না। মাকে নিয়ে কোথায় যাবো, কোথায় থাকবো ? এ চিন্তা থেকেই অনেক কষ্ট করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন নম্বর জোগাড় করে নিজের দূরঅবস্থার কথা জানিয়ে বাড়ি চেয়ে এসএসএস পাঠাই।

প্রধানমন্ত্রী আমার সেই এসএসএসটি দেখে মাগুরার ডিসিকে নির্দেশ দেন বাড়ি করে দেওয়ার জন্য। তখন ওই ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় হাজরাপুর পুরাতন বাজার এলাকায় পাকা ঘর নির্মাণ করে দেন। আল্লাহ কাছে দুই হাত তুলে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। আল্লাহ যেন তাকে সুস্থ রাখে। আমার মতো অসহায ভূমিহীন প্রতিবন্ধী মানুষের পাশে তিনি সব সময় থাকবেন। তার জন্যে আল্লাহর কাছে দোয়া রইলো।

বাবুর মা হাসনাহেনা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, চার সন্তানের মধ্যে বাবু সবার ছোট। ছোট বেলা থেকে বাবু প্রতিবন্ধী। ভালো করে কথা বলতে পারে না। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে একটি ছোট ঘরে চার সন্তান নিয়ে তিনি অনেক কষ্ট করছি। আমাদের কোনো জায়াগা-জমি নেই। বাবুর পাঠানো এসএমএস পেয়ে প্রধানমন্ত্রী যে ঘর তৈরি করে দিয়েছেন, এর জন্য তাকে দোয়াসহ ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

মাগুরার ডিসি ড. আশরাফুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, কলেজছাত্র বাবু তার নিজের অসহায়ত্বের কথা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে এসএমএস করে জানান। সেই এসএমএসে বাবু লেখেন- আমি প্রতিবন্ধী বাবু মিয়া, আমি মাকে ছোট বেলা থেকে নানা বাড়িতে জীবন-যাপন করছি। আমাদের কোনো জমি-জায়গা নেই। আমার মাসহ মোট পাঁচ জনের বসবাস। একটি মাত্র ঘর। তাই আমার আরও একটি ঘর অতি দরকার। প্রধানমন্ত্রী আমার একটি ঘর করে দিলে চির কৃতজ্ঞ হবো।

বাবু একজন ভূমিহীন প্রতিবন্ধী কলেজছাত্র। তিনি বর্তমানে মাগুরা আর্দশ কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। জেলা প্রাশাসনের পক্ষ থেকে বাবুকে ঘর ও জমির দলিল বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জমিসহ ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিসি ড. আশরাফুল আলম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ইয়াসিন কবির হাজরাপুর ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেনসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

Check Also

‘ভারত-জুজু’ কাটাতে প্রস্তুত পাকিস্তান

বৈশ্বিক টুর্নামেন্টে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের উন্মাদনা নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। তবে যত যাই হোক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *